মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০২:২০ পূর্বাহ্ন

পাঠ্যপুস্তকে বিতর্কিত বিষয় বাদ দেওয়ার দাবি ইসলামী দলগুলোর

রিপোর্টারের নাম / ১৮ টাইম ভিউ
আপডেট : মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০২:২০ পূর্বাহ্ন

ট্রান্সজেন্ডারসহ বিতর্কিত বিষয় পাঠ্যপুস্তক থেকে বাদ দেওয়ার দাবিতে ইসলামী দল ও সংগঠনগুলোর প্রতিবাদ অব্যাহত। গতকাল বিভিন্ন সংগঠন বিক্ষোভ মিছিল, সমাবেশসহ নানা কর্মসূচি পালন করেছে।

ইসলামী আন্দোলন : নতুন শিক্ষাক্রমকে বিতর্কিত আখ্যা দিয়ে এবং ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকের চাকরি ফিরিয়ে দেওয়ার দাবিতে সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ। গতকাল বাদ জুমা বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেটে এ সমাবেশের আয়োজন করে দলটি। দলটির সিনিয়র নায়েবে আমির মুফতি সৈয়দ মো. ফয়জুল করীম বলেন, আমরা দেখেছি দশম শ্রেণি পর্যন্ত ক্লাসগুলোতে কোনো পরীক্ষা রাখা হয়নি। পরীক্ষার আগে শিক্ষার্থীরা পড়ালেখা কিছুটা বেশি করে, যদি পরীক্ষাই না থাকে তাহলে তারা শিখবে কী?

তিনি বলেন, আমরা হিজড়াদের অধিকার চাই। কিন্তু হিজড়াদের নামে বইয়ে ট্রান্সজেন্ডার ইস্যু এনে অন্য বিষয় পড়ানো হচ্ছে। এটি মানুষ বুঝে গেছে। যুগে যুগে মানুষ খারাপ কাজ করে আসছে, অন্যায় করে আসছে। সমকামিতা অবৈধ, এটাকে বৈধতা দেওয়া যায় না। পরে বিক্ষোভ মিছিল বের করে দলটি।

বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলন : সংগঠনের আমির মাওলানা আতাউল্লাহ হাফেজ্জী বলেছেন, ইউরোপিয়ানদের জীবনের অবস্থা, তারা যেভাবে জীবনযাপন করে সেই ব্যবস্থা আমরা আমাদের সমাজে দেখতে চাই না। এ বিষয়ে কোনো ষড়যন্ত্র হলে দেশপ্রেমিক ইমানদার জনতাও প্রতিবাদে মাঠে নামবে। গতকাল রাজধানীর কামরাঙ্গীরচরের জামিয়া নূরিয়া ইসলামিয়ায় বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের উদ্যোগে আয়োজিত ‘ট্রান্সজেন্ডার : সভ্যতাবিধ্বংসী অপতৎপরতা’ শীর্ষক আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। আরও বক্তব্য রাখেন মুফতি মুজিবুর রহমান, মাওলানা মুজিবুর রহমান হামিদী, মুফতি সুলতান মহিউদ্দীন, মাওলানা সাইফুল ইসলাম, মোফাচ্ছির হোসাইন, মুফতি আবুল হাসান কাসেমী প্রমুখ।

আহলে সুন্নাত : সংগঠনের দফতর সচিব মুহাম্মদ আবদুল হাকিমের স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে চেয়ারম্যান শাইখুল হাদীস কাজী মুহাম্মদ মুঈন উদ্দিন আশরাফী, মহাসচিব পীর সৈয়দ মসিহুদ্দৌলা ও নির্বাহী মহাসচিব অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) আল্লামা মুফতি আবুল কাশেম মোহাম্মদ ফজলুল হক বলেন, ট্রান্সজেন্ডার একটি ঈমানবিধ্বংসী মতবাদ। ইসলাম ধর্ম দূরের কথা কোনো ধর্মেই এটার স্বীকৃতি নেই। এটা পশ্চিমা গোষ্ঠীর সূক্ষ্ম ষড়যন্ত্র। এটা ‘অভিশপ্ত’ ও ইমানবিধ্বংসী মতবাদ। এ মতবাদ এক ধরনের মানসিক বিকৃতির বহিঃপ্রকাশ মাত্র। সরকার তৃতীয় লিঙ্গকে স্বীকৃতি দিলেও অস্বীকৃত ট্রান্সজেন্ডারের মতো বিকৃত কর্মকাণ্ড সপ্তম শ্রেণির পাঠ্যপুস্তকে সন্নিবেশিত করে কোমলমতি শিশু-কিশোরদের সমকামিতার প্রতি উৎসাহ দেওয়ার নামান্তর।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিষয়শ্রেণীতে অন্তর্ভুক্ত আরো খবর
এক ক্লিকে বিভাগের খবর